Indian Cricket Team : নিজের বইতে ধোনি-শাস্ত্রীর অজানা তথ্য ফাঁস করলেন আর শ্রীধর

0
19
Indian Cricket Team : R Sridhar recalls an incident when Ravi Shastri was furious by MS Dhoni’s batting approach
Indian Cricket Team : R Sridhar recalls an incident when Ravi Shastri was furious by MS Dhoni’s batting approach

ভারতের (Indian Cricket Team) প্রাক্তন ফিল্ডিং কোচ আর শ্রীধরের সম্প্রতি প্রকাশিত বই ‘কোচিং বিয়ন্ড : মাই ডেজ উইথ দ্য ইন্ডিয়ান ক্রিকেট টিম’-এ প্রচুর অজানা তথ্য এবং চমকপ্রদ ঘটনার উল্ল্যেখ রয়েছে।  যে বইটি প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে সমগ্র ক্রিকেট মহল জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

ভারতীয় ড্রেসিংরুমের চাপানউতোর, খুঁটিনাটি সবটাই প্রকাশ্যে এসে পড়েছে এই বইটির মাধ্যমে। এই বইতে উল্ল্যেখিত সমস্ত ঘটনার মধ্যে সবচেয়ে নজরে পরার মতো একটি ঘটনা  হল, একবার মহেন্দ্র সিং ধোনির উপর মারাত্মক ভাবে ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন তৎকালীন প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রী। (Indian Cricket Team)

২০১৮ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওডিআই সিরিজের সময় ধোনির মন্থর ইনিংসের জন্য তার উপর চরম ক্ষিপ্ত হয়েছিলেন শাস্ত্রী। (Indian Cricket Team)

প্রসঙ্গত, ভারত একটি পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে ইংল্যান্ড সফর করেছিল। যার মধ্যে তিনটি টি-টোয়েন্টি, তিনটি ওডিআই এবং পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ছিল। টি-টোয়েন্টিতে ২-১ ব্যবধানে জেতার পর, ভারত সিরিজের প্রথম ওডিআই ম্যাচেও তাদের জয়ের গতি বজায় রাখে। ২৬৯ রান তাড়া করতে নেমে আট উইকেটে জিতেছিল মেন ইন ব্লু। যাই হোক, পরবর্তীতে বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন দল দ্বিতীয় খেলায় ৮৬ রানের বড় ব্যবধানে হারে।

সেই ম্যাচে হারের প্রসঙ্গ টেনে শ্রীধর লিখেছেন যে, রবি শাস্ত্রী হারের ব্যবধান বা ফলাফল নিয়ে কম চিন্তা করেছিলেন। আর রান তাড়া করতে নেমে ধোনির কৌশল নিয়ে একটু বেশিই ক্ষিপ্ত ছিলেন শাস্ত্রী। (Indian Cricket Team)

৩২৩-এর লক্ষ্য দিয়েছিল ইংল্যান্ড। সেই ম্যাচে জো রুট অপরাজিত ১১৩ রান করেছিলেন। সেই রান তাড়া করতে নেমে ২৩৬ রানেই অল আউট হয়ে যায় ভরত। (Indian Cricket Team)

বিরাট কোহলি আর সুরেশ রায়না মিলে ৮০ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। রায়নার ৪৭, কোহলির ৪৬ কিছুটা অক্সিজেন দিয়েছিল মারাত্মক চাপে থাকা ভারতীয় দলকে। কিন্তু কোহলি আউট হলে এরপর ক্রিজে আছেন মহেন্দ্র সিং। তখন জিততে হলে ভারতকে করতে হতো ১৮৩ রান। কিন্তু এরপর থেকে একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে ভারত। ধোনি নিজেও ৫৯ বলে মাত্র ৩৭ করে আউট হয়ে যান। (Indian Cricket Team)

শ্রীধর এই নিয়ে নিজের বইতে লিখেছেন,

“বিরাট এবং সুরেশ রায়না যখন ব্যাটিং করছিলেন, তখনও আমরা জয়ের আশা রেখেছিলাম। কিন্তু এরপরই আমাদের দ্রুত উইকেট পড়তে থাকে, বিরাটের পরেই এমএসও আউট হয়ে গেলে, শেষ ১০ ওভারে ব্যাটিং করার জন্য আমাদের কাছে শুধুমাত্র বোলাররাই বাকি ছিল।  আর সেই ১০ ওভারে আমাদের প্রয়োজনীয় রানরেট ছিল ১৩ রান প্রতি ওভারে।

আমরা পরের ছয় ওভারে মাত্র ২০ রান করতে পেরেছিলাম। এই ম্যাচে এমএসের কাছে সুযোগ ছিল নিজের কেরিয়ারের ১০,০০০ ওডিআই রানের একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক স্পর্শ করার। আমরা সবাই ওর জন্য খুবই রোমাঞ্চিত ছিলাম। তবে তিনি এই লক্ষ্যে পৌঁছতে সেই ভাবে কোনও চেষ্টাই করেননি। সেটা আমাদের ভাবিয়ে তুলেছিল।”

ম্যাচের ৪৭ তম ওভারে আউট হওয়ার আগে ধোনি ৫৯ বলে মাত্র দুই বাউন্ডারি মেরে ৩৭ রান করেছিলেন। ভারত শেষ পর্যন্ত ২৩৬ রানে গুটিয়ে যায়। শ্রীধর প্রকাশ করেছেন যে, রবি শাস্ত্রী ম্যাচ হারের বিষয়ে অসন্তুষ্ট ছিলেন না বরং তিনি ধোনির খেলার কৌশলে হতাশ হয়েছিলেন। শ্রীধর তারপর সিরিজের শেষ ম্যাচের আগে হেডিংলিতে ভারতীয় ড্রেসিং-রুমের পরিস্থিতির ব্যাখ্যা দিয়েছেন। (Indian Cricket Team)

আরও পড়ুনঃ Indian Cricket Team : খুব শীঘ্রই তিন ফর্ম‍্যাটে এক নম্বর দল হয়ে উঠবে ভারত, মত ওয়াসিম জাফরের

টিম মিটিংয়ে রবি ক্ষুব্ধ হয়ে কিছু বললেও, সেটা আসলে ধোনিকেই বলা হয়েছিল, এই বিষয়ে শ্রীধর জানিয়েছেন-

“আমরা ৮৬ রানে হেরেছি বলে রবি ক্ষিপ্ত ছিল না, কিন্তু আমরা কীভাবে খেলে হেরেছি, কী ভাবে লড়াই না করেই হার স্বীকার করেছি, সেটাই আসল ছিল ওর কাছে। আমরা লক্ষ্যের কাছাকাছি যাইনি, একটা ধাক্কাও দিতে পারিনি, ম্যাচটা সহজে হেরে গিয়েছিলাম। আর এর জন্য প্রধান কোচ যে সহজেই কিছু না বলে ছেড়ে দেবেন, এমনটা ছিল না।“

শ্রীধর আরও বলেন, (Indian Cricket Team)

“নির্ধারক ম্যাচ হেডিংলিতে ছিল, এবং আমরা আগের দিন একটি টিম মিটিং করি। সাপোর্ট স্টাফের সব সদস্য সহ পুরো স্কোয়াড উপস্থিত ছিল, এবং আমি জানতাম রবি ক্ষোভ প্রকাশ করতে চলেছে। ও নিজের উচ্চ এবং ক্ষুব্ধ স্বরে বলেছিল, তুমি যেই হও না কেনও, এমন কোনও বিষয় ঘটতে পারো না, যেটাতে আমরা জয়ের চেষ্টা না করে ম্যাচ হেরে বসবো। এটা অন্তত আমি থাকাকালীন হতে পারে না। আর কেউ যদি তা করে, সেটাই হবে তার কেরিয়ারের শেষ ক্রিকেট ম্যাচ। ক্রিকেট খেলায় হার-জিত আছে। এতে লজ্জার কিছু নেই, কিন্তু এভাবে কেনও হারবে !”

শ্রীধর উল্লেখ করেছেন যে, রবি শাস্ত্রী সেই পেপটকের মাঝে একবারও ধোনির নাম নেননি। তবে তিনি প্রাক্তন ভারত অধিনায়ককে চোখের ভাষাতেই সবটা বুঝিয়ে দিয়েছিলেন। তার দিকে চোখে চোখ রেখেই সবটা বুঝিয়ে দিয়েছিলেন। তবে রবি শাস্ত্রীর এই বক্তব্যে অন্য কোনও ক্রিকেটারও বিচলিত হয়ে থাকতে পারে। তবে ধোনি শান্ত ছিলেন এবং তিনি কোচের বক্তব্যকে অনুসরণ করেন। (Indian Cricket Team)

আরও পড়ুনঃ IND vs NZ 2023 : ডবল সেঞ্চুরি ভুলে গেছেন শুভমান গিল, দেখে খুশি ইরফান পাঠান